রবিবার, ২৬ Jun ২০২২, ০৫:২৩ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
হোমনায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় আদালতের নির্দেশে থানায় হত্যা মামলা

হোমনায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় আদালতের নির্দেশে থানায় হত্যা মামলা

তিতাস(কুমিল্লা)প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার হোমনায় ছাদিয়া আক্তার (১৮) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় আদালতের নির্দেশে থানায় হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে।

নিহতের বাবা মো. সাহাবুদ্দিন বাদী হয়ে কুমিল্লা বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ০৩ যৌতুকের জন্য নির্যাতন ও শ্বাসরোধে হত্যা শেষে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার অভিযোগ করলে বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে অভিযোগটি এফআইআর হিসেবে রুজু করার জন্য ওসি হোমনাকে নির্দেশ দেন।
আদালতের নির্দেশে পেয়ে হোমনা থানায় মামলা নং ৪/১৫.০৫.২০২২ইং রুজু করা হয়।অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ২ ফ্রেব্রুয়ারী হোমনা পৌর সভার শ্রীমদ্ধি চরের গাও গ্রামের সাহাবুদ্দীনের মেয়ে ছাদিয়াকে একই উপজেলার ভঙ্গারচর গ্রামের প্রবাসী ফারুক মিয়ার সাথে সামাজিকভাবে বিবাহ দেয়া হয়। বিবাহের পরই ৫ লাখ টাকার জন্য চাপ ও নির্যাতন করতে থাকে। সবশেষ গত ৭মে যৌতুকের টাকার জন্য ছাদিয়ার শ্বশুর মোবারক হোসেন, শ্বাশুড়ি মিনরা বেগম, স্বামী ফারুক মিয়া, ননাস পারুল আক্তার, রানু বেগম, রেহানা বেগম, সাহানা বেগম ও মামা শ্বশুড় আবদুল মতিনসহ অজ্ঞাত ব্যক্তিরা প্রকাশ্যে কিল-ঘুষি ও লাত্থি মেরে আহত করে এবং অশালিন গাল-মন্দ করে। এসময় ভিকটিম ছাদিয়া তাদের অত্যাচারে পালিয়ে বাচার চেষ্টা করে রাস্তায় চলে আসে। সেখান থেকে চুলের মুঠি ধরে টেনেহিঁচরে আবারো বাড়িতে নিয়ে নির্যাতন করে একটি কক্ষে আটকে রাখে।পরদিন (৮মে) সকালে ছাদিয়া গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এমন সংবাদ থানায় দিয়ে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।লোক মুখে সংবাদ পেয়ে ছাদিয়ার বাবা-মা তার শ্বশুড় বাড়িতে গিয়ে দেখে মেয়েকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।খবর পেয়ে থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে তবে এবিষয়ে হোমনা থানায় নিহতের বাবা মামলা করতে চাইলেও পুলিশ মামলা নেয়নি।পরে ভিকটিমের বাবা সাহাবুদ্দিন কুমিল্লা বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-এ অভিযোগ দায়ের করলে আদালত অভিযোগটি এফআইআর হিসেবে রুজু করতে ওসি হোমনাকে নির্দেশ দেন। প্রত্যক্ষদর্শী অনেকের সাথে কথা হলে তারা জানান, ঘটনাটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা নিশ্চিত বলা যাবে না।তবে আগের দিন মেয়েটিকে মেরেছে সবাই দেখছে। রাস্তা থেকে চুল ধরে এনেছে এটিও আমরা দেখেছি।এ বিষয়ে হোমনা থানা অফিসার ইনচার্জ মো. সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আদালতের নির্দেশে মামলাটি হোমনা থানায় নথিভুক্ত করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ফেসবুকে সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2017 আলোকিত ভোরের বার্তা
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com