সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:১১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
বাগমারা তাহেরপুর প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাংবাদিক সনেট নাসিরনগর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের রুবিনা আক্তারকে আহবায়ক ও সাহানা বেগমকে সদস্য সচিব করে নতুন কমিটি গঠন আত্রাইয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা সাংবাদিককে হেনস্থা করে পুলিশ বললেন, ‘দেখেন! দেখেন! নামটা ভালো করে দেখে যান’ সাংবাদিককে হেনস্থা করে পুলিল বললেন, ‘দেখেন! দেখেন! নামটা ভালো করে দেখে যান’ আত্রাইয়ে মিনা দিবস উদযাপন আত্রাইয়ে অ্যাসিস্টিভ ডিভাইস বিতরণ আমতলীতে পোস্টার লাগিয়ে চিকিৎসার প্রচারনা, ভুয়া ডাক্তারের আত্রাইয়ে মিনা দিবস পালিত নাসিরনগরে আর্দশ বীজতলা করে রোপা আমন রোপন হচ্ছে। বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা
রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল

রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলাম রানার বিরুদ্ধে নিজ দলের ছাত্রলীগ নেত্রীকে যৌন হয়রানিসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। সাম্প্রতিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের মাঝে ব্যপক সমালচনা চলছে।

জানা গেছে, গত ১১ জুলাই বাঘা উপজেলা ছাত্রলীগের ফেসবুক পেজে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানা একটি নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও লোড হয়। সেখানে লেখা হয়, এই হলো ছাত্রলীগ নেতা রানার চরিত্র। ভিডিও এবং ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দ্রুত ভাইরাল হয়ে পড়ে। রানার বির্তকিত কর্মকান্ডে চড়ম বিব্রত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও। তবে, ফেসবুকে ছাত্রলীগ নেতা রানার কিছু অনুসারিরা লিখেছেন, ভিডিওটি জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রানার না। একটি পক্ষ রানার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে।

আরো জানা গেছে, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রানার বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে রাজশাহী কলেজের হোস্টেল থেকে নাশকতার অভিযোগে শিবিরকর্মী হিসাবে সাকিবুল ইসলাম রানাকে বের করে দেন তৎকালীন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি রকি কুমার ঘোষ। নগরীর দরগাপাড়ায় সাইকেল চুরির অভিযোগেও আটক হয়েছিলেন তিনি। সেই সাকিবুল ইসলাম রানা এবার হলেন রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হওয়ার পর থেকেই বিতর্কের শেষ নেই। সাম্প্রতিক রাজশাহীর দূর্গাপুরে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে ভোট ও নাশকতামূলক কর্মকান্ডের অপরাধে সাত দিন কারাভোগ করা শাকিল খানকে উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সভাপতি করা হয়েছে। সেই সাথে তারই গ্রামের আতিকুর রহমান রিপনকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল রানা ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন অমি স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে দূর্গাপুর সিংঙ্গা পশ্চিমপাড়া গ্রামের বিএনপি কর্মী এনামুলের ছেলে শাকিল খানকে সভাপতি ও একই গ্রামের মৃত কুলি আজিতের ছেলে আতিকুর রহমান রিপনকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে আগামী এক বছরের জন্য কমিটি ঘোষনা করেন। কমিটির সভাপতি শাকিল খানের বিরুদ্ধে রয়েছে একাধিক অভিযোগ। নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন এবং নাশকতার অভিযোগে দূর্গাপুর পৌর আ’লীগের স্থগিত করা কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকের সাথে সাত দিন জেল হাজতে ছিলেন শাকিল খান। এছাড়া দূর্গাপুর পৌর ছাত্রলীগের কমিটির সভাপতি পদে থেকেও শাকিলকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এছাড়াও রাজশাহী জেলার বিভিন্ন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কাছে রানার চাঁদা দাবি করেন এবং বিকাশে টাকা নেয়া থেকে শুরু করে নানা অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এমনকি তার পক্ষে ছাত্রলীগ না করলে হামলারও শিকার হতে হয়েছে ছাত্রলীগের কর্মীদের।

রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের কমিটি প্রকাশের র্দীঘদিন পার হলেও সভাপতি রানার বিতর্কিত কর্মকান্ডে পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করতে পারেনি এখন পর্যন্ত জেলা ছাত্রলীগ। নিজেদের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন না করে বিভিন্ন উপজেলার ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ও সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কমিটি ঘোষানা করায় চড়ম ক্ষুব্ধ ত্যগী ছাত্রলীগ কর্মীরা। এভাবে কমিটি করায় বাদ পড়ে যাচ্ছে ত্যগী ও তৃনমূলের ছাত্রলীগের কর্মীরা।

দূর্গাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ি সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক বলেন, ৭ দিন আগে থেকে দূর্গাপুর উপজেলার কমিটি বিলুপ্ত করা হবে বলে বিভিন্নভাবে চাপ দিচ্ছিলেন জেলা সভাপতি রানা। বিভিন্নভাবে আমার কাছে টাকা দাবি করে সে। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানাকে দুই বারে বিকাশে ২০ হাজার টাকা দিয়েছি। কিন্তু সে আমার কাছে ৫ লাখ টাকা দাবি করে। সেই টাকা না দিতে পারায় তারা কমিটি বিলুপ্ত করেছে।

তিনি আরো বলেন, মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময় ভোটে নৌকার বিরোধীতাকারিদের কমিটির সভাপতি করেছে রানা। একি গ্রাম থেকে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক নির্বাচিত করে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যে পকেট কমিটি করেছে তারা। ছাত্রলীগের ত্যগী নেতাদের বাদ দিয়ে এমন ভাবে কমিটি ঘোষনা করায় ক্ষুব্ধ তৃনমূলের ছাত্রলীগের কর্মীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা ছাত্রলীগের নেতা বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানা নারী কেলেঙ্কারির একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ফেসবুকে। তার এমন কর্মকান্ডে বিব্রত আমরা। কারো ব্যক্তিগত বিষয় থাকতে পারে। এমন ভিডিও ভাইরাল হওয়া লজ্জাজনক বিষয়।

তিনি আরো বলেন, তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ভাবে নিজ দলের ছাত্রলীগ নেত্রীদের কে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ রয়েছে। সে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করার হুমকি দিয়েছে। সেই ছাত্রলীগের নেত্রী আমার কাছে অভিযোগ দিয়েছে। এসব বিষয় গুলি কেন্দ্রীয় নেতারা সাংগঠনিক যে নির্দেশনা দিবেন তা মেনে নেবো আমরা বলে জানান এ ছাত্রলীগ নেতা।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে জেলা ছাত্রলীগের এক নেতা বলেন,সভাপতি রানা বিমানে ছাড়া ঢাকায় যায় না। এছাড়া সাম্প্রতিক একটি নারী কেলেঙ্কারির একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ভিন্ন ধর্মের একটি নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহুর্তে রয়েছেন রানা। এছাড়া নিজ কমিটির ছাত্রলীগ নেত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে নিজের দলের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন ভাবে ব্লেকমেইল করে বিভিন্ন সময় বিকাশের মাধ্যমে টাকা আদায় থেকে শুরু করে তার ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করছে রানা। তার এমন কর্মকান্ডে চড়ম বিব্রত ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন অমি বলেন, ভিডিও যদি তার হয়ে থাকে তাহলে আমরা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে অবহিত করবো। আর যদি ভিডিও তার না হয়ে থাকে তবে যারা এসব নোংরামি করতেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

এ বিষয় জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাকিবুল ইসলাম রানা বলেন, ফেসবুকে যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সে টা আমার না। ভিডিওটি টিকটক। ভিডিওটি কে করেছে আমি জানি না।
তিনি বলেন, একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে। তাছাড়া আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ সঠিক না মিথ্যা।

ফেসবুকে সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2017 আলোকিত ভোরের বার্তা
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com