বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:১৮ অপরাহ্ন

বিয়ানীবাজার ফিল্ড থেকে দিনে যুক্ত হচ্ছে দেড় কোটি ঘনফুট গ্যাস

বিয়ানীবাজার ফিল্ড থেকে দিনে যুক্ত হচ্ছে দেড় কোটি ঘনফুট গ্যাস

সিলেট গ্যাস ফিল্ডের আওতাধীন বিয়ানীবাজার গ্যাস ফিল্ডের ২টি কূপ থেকে জাতীয় গ্রিডে প্রতিদিন সরবরাহ করা হচ্ছে দেড় কোটি ঘনফুট গ্যাস। একই সাথে প্রতিদিন পাওয়া যাচ্ছে ২৪০ ব্যারেল পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল এবং কেরোসিনের মতো উপজাত।

দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রায় ৩ হাজার ২০০ পিএসআই চাপে গ্যাস উত্তোলন হচ্ছে বিয়ানীবাজার গ্যাস ফিল্ডের পুনঃখননকৃত ১ নম্বর কূপ থেকে।

ইতিমধ্যেই লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী জাতীয় গ্রিডে সঞ্চালিত হচ্ছে প্রতিদিন ৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস। লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ হওয়ায় খুশি কলাকুশলীরা।

এই গ্যাস কূপটি ১৯৯৯ সাল থেকে উৎপাদনে আসলেও ২০১৭ সালে তা বন্ধ হয়ে যায়। সর্বশেষ সেপ্টেম্বরে সিলেট গ্যাস ফিল্ডের আওতাধীন কূপটিতে পুনঃখনন করে বাপেক্স। সন্ধান মিলে বিপুল পরিমাণ গ্যাসের।অবশেষে সোমবার রাত থেকে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হয় গ্যাস।

এছাড়াও একই গ্যাস ফিল্ডের অপর একটি কূপ থেকে দৈনিক ৭ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলিত হচ্ছে। দুটি গ্যাস ফিল্ড মিলে ১৫ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সঞ্চালন হচ্ছে জাতীয় গ্রিডে।

আর প্রতিদিন প্রায় ৩৭ হাজার লিটার অকটেন ও পেট্রোল এর মতো উপজাত পাওয়া যাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ এই গ্যাস ফিল্ড থেকে।

সিলেট গ্যাস ফিল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মিজানুর রহমান জানান, বিয়ানীবাজার গ্যাস ফিল্ড থেকে এখন পর্যন্ত ১০৩ বিলিয়ন কিউবিক ফিট গ্যাস উত্তোলন হয়েছে। এখনো ১০০ বিলিয়ন কিউবিক ফিট গ্যাস মজুদ রয়েছে। এখান থেকে প্রায় ১৫ বছর গ্যাস উত্তোলন সম্ভব।

বিয়ানীবাজারে নতুন গ্যাস কূপ অনুসন্ধানে ১৯১ বর্গকিলোমিটারজুড়ে ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ চলমান রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে বিয়ানীবাজার গ্যাসকূপ পুনঃখনন প্রক্রিয়া সফলভাবে শেষ হওয়া এবং উৎপাদন শুরু হওয়ায় রিকসহ অন্যান্য স্থাপনা সরিয়ে নিচ্ছে বাপেক্স।

আগামী মাসেই সিলেট গ্যাস ফিল্ডের আওতাধীন অন্যান্য পরিত্যক্ত গ্যাস ফিল্ডে পুনঃখনন বা ওয়ার্ক ওভার শুরু করবে বাপেক্স এমনটাই জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।

 

ফেসবুকে সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2017 আলোকিত ভোরের বার্তা
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com