রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৪:২৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
লোহাগড়ার মল্লিকপুর ইউনিয়নে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সমাজ সেবক মুনসী শরীফুল ইসলাম হোমনা-তিতাস প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী দুবাইয়ে পালিত জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতির মায়ের মৃত্যুতে নাসিরনগরে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল তিতাস উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলামের জন্মদিন পালিত দুর্গাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবক নিহত রাণীশংকৈল কাতিহার হাটে অতিরিক্ত টোল আদায় দূর্গাপুর মাদকের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিক জীবন কে মাদক ব্যবসায়ী সর্বহারা রহমতের প্রান নাশের হুমকি। তাহেরপুরে মাদক সেবনকারী ও ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ৫ তিতাসে সাতানী ইউনিয়ন ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জিয়াউর রহমানের জন্মদিন পালিত যোগদানের পাঁচ দিনেই সাঁড়াশি অভিযানে৫ জনকে গ্রেপ্তার করলেন তাহেরপুর পুলিশ তদম্তকেন্দ্র আইসি

এবার বাপ-বেটার সম্পদের তথ্য সংগ্রহ করছে দুদক

এবার বাপ-বেটার সম্পদের তথ্য সংগ্রহ করছে দুদক

নিউজ ডেস্কঃ ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের বরখাস্ত হওয়া কাউন্সিলর মোহাম্মদ ইরফান সেলিমের সম্পদের প্রাথমিক তথ্য নিচ্ছে দুদক। দুদকের সিডিউলভুক্ত অপরাধ হলে তাদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করে ব‌্যবস্থা নেওয়া হবে।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, হাজী সেলিম এবং তার ছেলে ইরফান সেলিমের বিষয়ে আমরা বিভিন্ন প্রিন্ট এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সংবাদ দেখেছি।

তিনি বলেন, আমরা লক্ষ‌্য করছি, বিষয়গুলো আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিষয়। তবে অবৈধ সম্পদের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা পরিষ্কার নয়। অবৈধ সম্পদের বিষয়গুলো যদি দুদকের সিডিউলের সঙ্গে সম্পর্কিত হয় এবং সিডিউলভুক্ত অপরাধের সামিল হয়, তাহলে আমরা পরীক্ষা-নিরিক্ষা করে দেখবো এবং দুদকের আইন পরবর্তিতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হাজী সেলিম ও তার পরিবার।

মোজাম্মেল হক খান বলেন, সরকারের জায়গা বা সম্পত্তি হোক, যদি দখল হয় তাহলে দুদক আইনের আওতাভুক্ত হলে সেই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সোমবার (২৬ অক্টোবর) হাজী সেলিমের ছেলে ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের বরখাস্তকৃত কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ধানমন্ডি থানায় হত্যাচেষ্টার মামলা হয়। নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান বাদী হয়ে মামলা করেন।

আসামিরা হলেন- ইরফান সেলিম, তার বডিগার্ড মোহাম্মদ জাহিদ, হাজি সেলিমের মদিনা গ্রুপের প্রটোকল অফিসার এবি সিদ্দিক দিপু এবং গাড়িচালক মিজানুর রহমানসহ অজ্ঞাত আরো কয়েকজন। পরে র‌্যাব পুরান ঢাকায় চকবাজারের ২৬ দেবীদাস লেনে হাজী সেলিমের বাসায় অভিযান চালায়। এ সময় ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদকে হেফাজতে নেয় র‌্যাব। বাসায় অবৈধ মদ ও ওয়াকিটকি রাখার দায়ে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের দু’জনকে এক বছর করে কারাদণ্ড দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন...

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018-2020  Bhorarbatra.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com